বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

Sex Cams

ফ্রান্সে অনিয়মিত অভিবাসীদের নিয়মিতকরণের দাবি




শাহ সুহেল আহমদ:

সরব হয়ে ওঠেছে ফ্রান্সে বসবাসরত অনিয়মিত অভিবাসীদের নিয়মিতকরণের দাবি। দেশের বিশিষ্ট নাগরিকেরা এ দাবি জানানোর পর এবার ফ্রান্স পার্লামেন্টের ১০৪ জন সদস্য প্রধানমন্ত্রী বরাবরে এ দাবি জানিয়েছেন। এতে ফ্রান্সে বসবাসরত অনিয়মিত বাংলাদেশীসহ সকল অভিবাসীর মধ্যেই এক ধরনের আশার সঞ্চার হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সংকটময় পরিস্থিতিতে আছেন সকলেই। কিন্তু এর মধ্যে কঠিন সংকটে আছেন অনিয়মিত অভিবাসীরা। যার মধ্যে বহু বাংলাদেশী রয়েছেন। সংকটময় পরিস্থিতির কারণে নিয়মিতরা ফ্রান্স সরকারের কাছ থেকে বিভিন্ন রকম অতিরিক্ত সুযোগ সুবিধা পেলেও অনিয়মিতরা থাকছেন এসবের বাইরে। হাতেগোণা এক দু’জন ব্যতিত এখন কেউরই কাজ নেই। ফলে মানবিক দিক বিবেচনায় তাদের নিয়মিত করণে দাবি উঠছে বারবার।

স্বয়ং সংসদ সদস্যরা এ দাবি তোলার পর অনেকেই মনে করেছিলেন, প্রেসিডেন্ট এ্যামানুয়েল মেক্রন তার বক্তব্যে এ বিষয়ে কোনো আলোকপাত করবেন। কিন্তু প্রেসিডেন্ট গেল সপ্তাহে দেয়া ভাষণে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেন নি। কিন্তু এরপরও আশাহত হন নি অনিয়মিত অভিবাসীরা। তারা এখনও স্বপ্ন দেখছেন, হয়তো কোনো সুখবর আসতে পারে।

কিছুদিন আগে পর্তুগাল সরকার তার দেশে বসবাসরত অনিয়মিতদের শর্তসাপেক্ষে নিয়মিত করার ঘোষণা দেয়। আর এর পর থেকেই ফ্রান্সে এই দাবি জোরদার হয়। সংসদ সদস্যরা তাদের দাবিতে অনিয়মিতদের চিকিৎসা সংকট ও তাদের সন্তানদের কথা গুরুত্ব দিয়েছেন।

ফ্রান্সে বর্তমানে ঠিক কতো সংখ্যক অবৈধ অভিবাসী রয়েছে তার কোন সঠিক পরিসংখ্যান সরকার বা কোন প্রতিষ্ঠানের কাছে নেই। তবে এদের সংখ্যা প্রায় পাঁচ লাখেরও বেশি হতে পারে বলে জানা যায়। আবার কেউ সঠিকভাবে বলতে পারবে না, এই অনিয়মিত অভিবাসীর মধ্যে সন্তানসহ কতোজন দম্পতি রয়েছে। অথবা কতোজন চাকরি করছে।

ফ্রান্সে সবচেয়ে বেশী সংখ্যক অবৈধ অভিবাসী বৈধতা লাভ করে ১৯৮১ সালে। এ বছর এক লাখ ৩১ হাজার অবৈধ অভিবাসী এক সঙ্গে বৈধতা লাভ করে। এরপর ১৯৯৭ সালে ৮০ হাজার বৈধতা পায়। এরপর ২০১৩ সালেও অনিয়মিত অভিবাসীদের নিয়মিত করণে প্রজ্ঞাপন জারী করা হয়।

 

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: