বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

৫ সন্তানসহ বাংলাদেশি দম্পতিকে ফ্রান্স ছাড়ার নির্দেশ




অনলাইন ডেস্কঃ

ফ্রান্সে স্ত্রী ও ৫ সন্তানসহ বসবাস করা বাংলাদেশি মোহাম্মদ সালেহকে ফ্রান্স থেকে বহিষ্কারাদেশ (OQTF) দেয়া হয়েছে। প্যারিসের উপকণ্ঠের শহরতলী নোয়াসি ল্য গ্রঁ’তে তিনি পরিবারসহ থাকতেন।

২০১৪ সালে আশ্রয় আবেদন প্রত্যাখ্যানের পর থেকে মোহাম্মদ সালেহ সেইন সা’দানি ডিপার্টমেন্টে বসবাস করছিলেন। ৩ সন্তানের পর তাদের ঘরে গত মার্চে জমজ সন্তানের জন্ম হয়। তাদের এক আত্মীয়ের যে বাসায় সাবলেট থাকতেন সেখানে ৭ জনের আর থাকা সম্ভব না হওয়ায় ১১৫’র হোটেলে উঠতে বাধ্য হন তারা।

স্ত্রীর ওষুধ কিনতে বের হওয়ার পর ৩১ মে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে নোয়াসি ল্য গ্রঁ এলাকায় পুলিশের ‘পাপিয়ে কন্ট্রোল’-এর মুখোমুখি হন তিনি। এরপর তাকে এক মাসের মধ্যে ফ্রান্স ছেড়ে যেতে OQTF আদেশ ইস্যু করে ৯৩ ডিপার্টমেন্টের প্রিফেত।

মোহাম্মদ সালেহ’র এ বহিষ্কারাদেশের বিরুদ্ধে ফরাসী একটি সংস্থা RESF-93 উদ্যোগী হয়ে মনত্রুইয়ের আদালতে ‘আপিল’ করেছে। শিক্ষা অধিকার নিয়ে কাজ করা সংস্থাটি তাদের আপিলের যুক্তিতে বলেছে: মোহাম্মদ সালেহ’র সন্তানরা ৯৩ ডিপার্টমেন্টের বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করছে; এমন অবস্থায় তার এ দেশ ছেড়ে চলে যেতে বলা অমানবিক। তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে তাকে ‘ভি ফ্যামিলি-প্রিভি’র আওতায় ‘কার্তে সিজুর’ প্রদানের দাবিও করেছে সংস্থাটি।

প্রসঙ্গত, ফ্রান্সে বসবাসে অনিয়মিত হয়ে পরলে ৮ ধরনের কারণে ফ্রান্সের প্রিফেকচ্যুরগুলো OQTF নামের বহিষ্কারাদেশ দেয়। এর বিরুদ্ধে অবশ্য ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আপিল করা যায়।

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: