সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

Sex Cams

চাঁদে রকেট পাঠানোর নতুন তারিখ ঘোষণা করল নাসা




আইটি ডেস্ক:

কারিগরি ত্রুটির কারণে শেষ মুহূর্তে স্থগিত করা নাসার চন্দ্রাভিযানে রকেট উৎক্ষেপণের নতুন তারিখ ঘোষণা করেছে মার্কিন এই মহাকাশ সংস্থাটি।

নাসার আর্টেমিস প্রকল্পের আওতায় সেই চন্দ্রাভিযানে আগামী শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ১৭ মিনিট থেকে পরবর্তী ২ ঘণ্টার মধ্যে রকেটটির উৎক্ষেপণের প্রচেষ্টা চালানো হবে। বুধবার নাসার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এ তথ্য জানা যায়।

অ্যাপোলো মিশনে চাঁদের বুকে অবতরণের ৫০ বছর পর আবারও মানুষকে চাঁদে নিয়ে যেতেই নাসার এই অভিযান। যার নাম দেওয়া হয়েছে মিশন আর্টেমিস। এ অভিযানকে নাসার মঙ্গল গ্রহে মানবযাত্রার পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে দেখা হচ্ছে।

এই মিশনের মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে স্পেস লঞ্চ সিসটেম, যাকে সংক্ষেপে এসএলএস বলা হচ্ছে। এটাই এখন পর্যন্ত নাসার সবচেয়ে আধুনিক মহাকাশ যান।

কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে বাংলাদেশ সময় সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ৩৩ মিনিটে রকেটটি উৎক্ষেপণের কথা ছিল। পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলের বাইরে পৌঁছে রকেটটি একটি টেস্ট ক্যাপসুল ছুড়ে দেবে। এই টেস্ট ক্যাপসুলের নাম ‘ওরিয়ন’।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, স্পেস লঞ্চ সিস্টেমে করে ওরিয়ন লঞ্চ প্যাডে বসানো হয়। শুরু হয় জ্বালানি ভরাসহ অন্যান্য রুটিন কাজ। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের ঘণ্টা দেড়েক আগে দেখা দেয় গড়বড়।

বিবিসি জানিয়েছিল, রকেটের যে অংশ তরল হাইড্রোজেন ও তরল অক্সিজেন ট্যাংকের সঙ্গে যুক্ত, সেখানেই ফাটল ধরা পড়ে। নাসার প্রকৌশলীরা তখন বলেছিলেন, তারা ক্রুটি পরীক্ষা করে দেখছেন।

রকেটের চারটি বড় এরএস-২৫ ইঞ্জিনের একটিতেও সমস্যা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে উৎক্ষেপণের নির্ধারিত সময়ের ৪০ মিনিট আগে থেমে যায় কাউন্টডাউন। পরে জানানো হয়, সময় মতো ত্রুটি সারানো সম্ভব না হওয়ায় সোমবারের মতো উৎক্ষেপণ স্থগিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার অভিযানের ব্যবস্থাপকরা প্রাপ্ত তথ্য বিশ্লেষণ করেন এবং সোমবারের উৎক্ষেপণ প্রয়াস ব্যর্থ হওয়ার কারণ নিয়ে বৈঠক করেন।

নাসা জানিয়েছে, সোমবার আর্টেমিসের কর্মীরা রকেটের ৪টি আরএস-২৫ ইঞ্জিনের তাপমাত্রাকে প্রায় মাইনাস ৪২০ ডিগ্রি ফারেনহাইটে নামিয়ে আনতে সক্ষম হন। তবে ৩ নম্বর ইঞ্জিনের তাপমাত্রা অন্যগুলোর তুলনায় অপেক্ষাকৃত বেশি ছিল।

এছাড়াও কর্মীরা পার্জ ক্যান নামক একটি যন্ত্রাংশ থেকে হাইড্রোজেন নিসৃত হওয়ার বিষয়টি চিহ্নিত করেন। তবে ‘হাইড্রোজেন লিক’ সারাতে বেশি সময় নেননি নাসার প্রকৌশলী দল।

বিবিসি জানিয়েছে, সোমবারের অভিযান ব্যর্থ হওয়ার কারণটি ইঞ্জিন নয়, বরং যে প্রক্রিয়ায় ইঞ্জিনগুলোকে ফ্লাইটের জন্য প্রস্তুত করা হয়, তাতে কিছু সমস্যা ছিল। এ সমস্যার মোকাবিলায় প্রকৌশলীরা শনিবার ইঞ্জিন ঠান্ডা করার প্রক্রিয়াটি ৪৫ মিনিট আগে থেকেই শুরু করবেন, যাতে উৎক্ষেপণের সময় আর কোনো ঝামেলা না হয়।

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: