বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সউদীতে করোনায় মৃতদের ২০ শতাংশই বাংলাদেশি!




সউদী আরবে প্রতিদিনই করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুতগতিতে বাড়ছে। প্রায় প্রতিদিনই নতুন করে রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্তের খবর জানাচ্ছে সউদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সবশেষ তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬৫১ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৮৫ জন। আর মৃত্যুবরণ করেছেন ৪৭ জন।
দূতাবাস এবং কনস্যুলেট থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত সউদীতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১১ জন বাংলাদেশি প্রবাসী। যা মোট মৃত্যুহারের ২০ শতাংশের বেশি। এর মধ্যে মদিনায় ৭ জন এবং তাদের চারজনই চট্টগ্রামের।
বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদ এবং বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল জেদ্দা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, সউদী আরবের বিভিন্ন শহরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া বাংলাদেশিরা হলেনÑ সাভারের কোরবান (মদিনা), নড়াইলের ডাক্তার আফাক হোসেন মোল্লা (মদিনা), চট্টগ্রামের মোহাম্মদ হাসান (মদিনা), চট্টগ্রামের মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন (মদিনা), ভোলার মোহাম্মদ হোসেন (রিয়াদ), পাবনার আব্দুল মোতালেব (রিয়াদ), মানিকগঞ্জের মান্নান মিয়া (জেদ্দা), চট্টগ্রামের মোহাম্মদ রহিম উল্লাহ (মদিনা), নরসিংদীর খোকা মিয়া (মদিনা), চট্টগ্রামের নাসির উদ্দিন (মদিনা) এবং আজিবর (মদিনা)।
সউদী সরকার করোনার বিস্তার রোধ করতে নানামুখি পদক্ষেপ নিয়েছে। পাশাপাশি নাগরিক এবং বিদেশিদের সচেতন করতে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক তথ্য দিয়ে সেলফোনে ২ বিলিয়নের বেশি ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশিদেরকে সচেতন করতে সউদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রচারপত্রে বাংলা ভাষা ব্যবহার করতে দেখা গেছে।
এছাড়াও সউদী আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ’র দেয়া একটি বাংলা বক্তব্য প্রচারের পরিকল্পনা নিয়েছে সউদী কর্তৃপক্ষ। এতো কিছুর পরেও কিছু কিছু এলাকার বাংলাদেশিরা এখনো বেপরোয়া। ২৪ ঘণ্টা কারফিউ চলমান থাকার পরেও তারা অকারণে জমায়েত হচ্ছেন।
বাংলাদেশিদেরকে স্থানীয় আইন মেনে ঘরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে মিশনগুলো। বড় বড় শপিং মলের সামনে করোনা থেকে বাচার বিভিন্ন উপার সম্বলিত রোল আপ স্ট্যান্ড লাগানো হয়েছে।
বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদের শ্রম কল্যাণ কাউন্সিলর মো. মেহেদী হাসান বলেন, দূতাবাসের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হতে বলা হচ্ছে। খাদ্য সংকটে থাকা প্রবাসীদেরকে দূতাবাসের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়ার জন্য ইতোমধ্যে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। ৫-৬ হাজার বাংলাদেশির কাছ থেকে ম্যাসেজ পাওয়া গেছে। তবে এখন যেহেতু ২৪ ঘণ্টা কারফিউ সে কারণে আমরা কোথাও মুভ করতে পারছি না।
তিনি আরও বলেন, দূতাবাসের শ্রম কল্যাণ ইউং এর একটি টোল ফ্রি হটলাইন নাম্বার (৮০০১০০০১২৫) প্রবাসীদের সেবায় ২৪ ঘণ্টা চালু রাখা হয়েছে। প্রবাসীরা চাইলে এখানে কল করে যেকোন ধরনের পরামর্শ নিতে পারবেন এজন্য ফোনে কোন টাকা কাটবে না।

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: