শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গাজায় আবারও বিমান হামলা ইসরায়েলের




ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

ফিলিস্তিনের গাজায় আবারও বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। চলতি সপ্তাহে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার এ ধরনের হামলা চালানো হলো। ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী বলেছে, রকেট ইঞ্জিন তৈরিতে ব্যবহার হওয়া একটি ভূগর্ভস্থ স্থাপনায় তাদের যুদ্ধবিমানগুলো হামলা চালিয়েছে। খবর আল-জাজিরার।

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে এ হামলা চালানো হয়। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। হামলায় মধ্য গাজার আল-বুরেইজ শরণার্থী ক্যাম্পের কয়েকটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা আল-জাজিরাকে জানিয়েছেন।

এর আগে রাতে গাজা থেকে ছোড়া একটি রকেট দক্ষিণ ইসরায়েলে আঘাত হানে। এতে একটি বাড়ি সামান্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে ইসরায়েলি পুলিশ জানিয়েছে।

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী বলেছে, বিমান হামলার পর অবরুদ্ধ উপকূলীয় ওই ভূখণ্ড থেকে আরও চারটি রকেট নিক্ষেপ করা হয়। তবে আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা সেগুলোকে আকাশেই ধ্বংস করে দিয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী রকেট হামলার দায় স্বীকার করেনি।

গাজার শাসক গোষ্ঠী হামাস এক বিবৃতিতে বলেছে, ইসরায়েলের বোমাবর্ষণ কেবলই দখলদারত্বের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ফিলিস্তিনিদের উৎসাহিত করবে। জেরুজালেম এবং এর জনগণের প্রতি তাঁদের সমর্থনকে আরও জোরদার করবে।

গাজার শাসক গোষ্ঠী হামাস এক বিবৃতিতে বলেছে, ইসরায়েলের বোমাবর্ষণ কেবলই দখলদারত্বের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ফিলিস্তিনিদের উৎসাহিত করবে। জেরুজালেম এবং এর জনগণের প্রতি তাঁদের সমর্থনকে আরও জোরদার করবে।

ইসরায়েল ও অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে সহিংসতা বাড়তে থাকায় বড় ধরনের সংঘাতে জড়ানোর আশঙ্কা বেড়েছে। গত বছর গাজায় ইসরায়েলের ১১ দিনের হামলায় ২৫০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হন। ইসরায়েলে নিহত হন ১৩ জন। মার্চে পশ্চিম তীরে অভিযান চালিয়ে ২৯ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করে ইসরায়েলি বাহিনী। একই সময়ে ইসরায়েলে সড়কে একাধিক হামলায় ১৪ জন নিহত হন।

গত সপ্তাহে আল-আকসা মসজিদেও হামলা চালায় ইসরায়েলি দাঙ্গা পুলিশ। এতে কমপক্ষে ১৫৮ মুসল্লি আহত হন। মুসলিমদের পবিত্র রমজানের একটি অংশের সঙ্গে ইহুদিদের পাসওভার উৎসবের সময় মিলে যাওয়ায় এ বছর উত্তেজনা বাড়ে।

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: