মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মানব কল্যাণে সরব ‘কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে’




মোহাম্মদ মখলিছুর রহমান :
হযরত শাহ জালালের স্মৃতি বিজড়িত সিলেটকে বাংলাদেশের আধ্যাত্বিক রাজধানী বলা হয় এবং সিলেটের আধ্যাত্বিকতার প্রাণ হল কানাইঘাট উপজেলা। অসংখ্য পীর বুজুর্গ, অলি আওলিয়া এবং জ্ঞানী গুণীর স্মৃতি বিজড়িত সিলেটের অন্যতম উপজেলা কানাইঘাট, বাংলাদেশের একটি প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী জনপদের নাম। ব্রিটিশ, পাকিস্তান এবং বর্তমান বাংলাদেশের সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক বিশেষ করে ধর্মীয় শিক্ষার ক্ষেত্রে কানাইঘাটের মানুষের অবদান অতুলণীয়।
ষাট বা সত্তুরের দশকে কানাইঘাট উপজেলা থেকে খুবই অল্পসংখ্যক মানুষ ইংল্যান্ডে এসেছিলেন। মুষ্টিমেয় যে কয়জন ছিলেন তাদের অনেকেরই ইচ্ছা ছিল ইংল্যান্ডে স্থায়ীভাবে বসবাস না করার। কয়েক বছর বৈধভাবে থেকে ওই সময়ের আর্থ সামাজিক বিশেষ করে ধর্ম পালনের প্রতিবন্ধকতার কথা চিন্তা করে অনেকেই দেশে চলে গিয়েছিলেন। যে কয়জন স্থায়ীভাবে থাকার সিদ্বান্ত নিয়েছিলেন, কালের পরিবর্তনে তারা ইংল্যান্ডে কানাইঘাটবাসীদের জন্য একটি সংগঠন প্রতিষ্টার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করলেন। এরই ফলশ্রুতিতে ১৯৮৫ সালের ২২শে সেপ্টেম্বর কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের প্রথম চেয়ারম্যান, বিলেতে মহান মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম আলহাজ্ব এম এ রকিব সাহেবের মালিকানাধীন ইস্ট লন্ডনের ১০৬ মাইল্যান্ড রোডের ইন্ডিয়া গ্রিল রেষ্টুরেন্টে “কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে” প্রতিষ্ঠা করা হয়, যা পরবর্তীতে ২০০২ সালে যুক্তরাজ্য চ্যারিটি কমিশনের অধীনে নিবন্ধিত হয়। চ্যারিটি রেজিষ্টার নম্বর ১০৯২৭৯৭।
কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে একটি অরাজনৈতিক, জন কল্যাণমুখি সামাজিক সংগঠন। ১৯৮৫ সালের ২২ শে সেপ্টেম্বর এই সংগঠন প্রতিষ্টার পর থেকে বিগত ৩ দশকেরও বেশি সময় যুক্তরাজ্যে বসবাসরত কানাইঘাটবাসীর আর্থ সামাজিক সম্পর্ক, শিক্ষা সংস্কৃতি, পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নসহ আরো কিছু লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করছে। পাশাপাশি তাদের শিকড় কানাইঘাট উপজেলাতে প্রাকৃতিক দুর্যোগে, আর্থ সামাজিক ও শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন সময় সহযোগিতা করে আসছে।
৭ই জুলাই ২০১৯ তারিখে কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের বিজিএম-এ ২০১৯ -২০২১ সেশনের জন্য সভাপতি, সেক্রিটারি এবং ট্রেজারার নির্বাচন করা হয়। দ্বিতীয় টার্মের জন্য সভাপতি নির্বাচিত হন জনাব নাজিরুল ইসলাম, সেক্রেটারি জনাব মখলিছুর রহমন এবং ট্রেজারার নিবাচিত হন জনাব আহমেদ ইকবাল চৌধুরী। ৮ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে এসজিএম-এ ৪১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। উলেখ্য, বর্তমানে ৮ সদস্য বিশিষ্ট এসোসিয়েশনের এডভাইসারি কমিটি রয়েছেন।
বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের জন্য বর্তমান কমিটির সময় সর্ব সন্মতিক্রমে আরও ১ বছর বাড়িয়ে দেওয়া হয়। ৭ই জুলাই ২০১৯ তারিখে দায়িত্ব গ্রহণ করে ২ অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত বৰ্তমান কমিটি অনেক যুগান্তরকারী সামাজিক, মানবিক, সাংস্কৃতিক, ইসলামিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।
বিভিন্ন প্রজেক্টে মোট ১ কোটি ১৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা সহায়তা করা হয়েছে। মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ‘কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে’।
কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের উদ্যোগ বিগত ৩ বছরে বাস্তবায়িত উল্লেখযোগ্য কার্যক্রম এই প্রতিবেদনে তুলে ধরছি।
৮ই আগস্ট ২০১৯ তারিখে আমার মমতাময়ী আম্মা ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাইহি রাজিউন। ২৬ শে আগস্ট ২০২১ তারিখে পুর্ব লন্ডনের বো মসজিদে আমার আম্মা এবং ইসি মেম্বার জনাব মুজিবুর রহমানের মাতা পিতাসহ সদ্য পরলোকগত মুর্দেগানের রুহের মাগফিরাত কামনা করে এসোসিয়েশনের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল আয়োজন করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা রফিক আহমেদ।
২৬ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে ইসি মিটিংয়ের পর সংগঠনের চেয়ারপারসন সহ আরো কয়েকজন নেতৃবৃন্দ মরণব্যাধি ক্যানসারে আক্ৰান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করা বাইয়মপুর গ্রামের জনাব মনোয়ার বদরুদ্দুজা সাহেবের সন্তানদের জন্য বৃত্তি স্বরূপ ২০০০ পাউন্ড হস্তান্তর করেন। আগের ইসি কমিটির নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই টাকা কালেকশন করা হয়।
২ই ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে প্রিয় জন্মভুমি কানাইঘাট উপজেলার ৮নম্বর ঝিংগাবাড়ি ইউনিয়নের তিনচটি হাজী আব্দুল খালিক মহিলা মাদ্রসার বার্ষিক জলসা উপলক্ষে ৫০ হাজার টাকা সহায়তা দেওয়া হয়।
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের প্রাক্তন সেক্রেটারি জনাব সুয়েবুর রহমানের আম্মা ইন্তেকাল করেন। ২৩শে ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে ভার্চুয়ালি দোয়ার আয়োজন করা হয়। উপস্থিত কমিউনিটির অনেক নেতৃবৃন্দ স্মৃতিচারণ করেন এবং দোয়া পরিচলানা করেন মাওলানা আব্দুর রাহমান মাদানী।
৪ই মার্চ ২০২০ সনে ৮ নং ঝিংগাবাড়ি ইউনিয়নের দর্জিমাটি গ্রামের বিধবা সুফিয়া বেগমের ঘর তৈরিতে সহায়তা স্বরূপ ৭০ হাজার টাকা হস্তান্তর করা হয়। কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের পক্ষে এই টাকা হস্তান্তর করেন হাফিজ মাওলানা আলতাফুর রহমান।
পৃথিবীর মানুষ যে রোগের নাম আগে কখনো শোনেনি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) নামের সেই মহামারী পৃথিবীতে আঘাত হানে পুরো বিশ্ব হয়ে যায় স্থবির। বিশ্বের সমাজবদ্ধ মানুষ হয়ে যায় ঘর বন্দি। এমতাবস্থায় কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে তাদের শিকড়ের সম্ভলহীন মানুষের পাশে দাঁড়ায়।
২০২০ সনের মে মাসে ২৫ লক্ষ টাকা নগদ বিতরণ করা হয় কানাইঘাটের ৯টি ইউনিয়ন, পৌরসভার ৯০টি ওয়ার্ডের প্রতিটি গ্রামের অসুবিধায় পড়া মানুষের মধ্যে। প্রশংসিত হয় দেশে ও বিদেশে এই মানবিক কার্যক্রম।
ইউকেতে বসবাসরত কানাইঘাটের প্রতিটি মানুষ এই মহতী কাজে ডোনেশন করেন। বিশেষ অবদান রাখেন ব্যারিস্টার কুতুবুদ্দিন আহমেদ শিকদার এমবিই, জনাব বশিরুল ইসলাম, জনাব নাজিরুল ইসলাম, এবং জনাব আনিসুল হক। ডোনেশন কার্যক্রম দেশে বাস্তবায়ন করতে চেয়ারপারসন, সেক্রেটারি এবং ট্রেজারারের সাথে অক্লান্ত পরিশ্রম করেন জনাব আনিসুল হক, জনাব ফারুক আহমেদ চৌধুরী এবং জনাব হারুন রশিদ।
কানাইঘাট উপজেলাতে ওয়ার্ড ভিত্তিক এই নগদ টাকা বিতরণে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান, কানাইঘাটের পৌর মেয়র, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ, মেম্বারগণ, শিক্ষকবৃন্দ এবং সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ।
৮নম্বর ঝিংগাবাড়ি ইউনিয়নের নারাইনপুর গ্রামের টিউমারে আক্ৰান্ত বিধবা জামিলা বেগমের চিকিৎসার জন্য ২ই জুন ২০২০ সনে কানাইঘাট এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ফান্ড রেইজ করা হয় এবং এসোসিয়েশনের চেয়ারপার্সন জনাব নাজিরুল ইসলাম নিজ দায়িত্বে চিকিৎসা তদারকি করেন। এই মানবিক আবেদনে টোটাল কালেকশন করা হয় ২ লক্ষ ২১ হাজার পাঁচ শত চল্লিশ টাকা।
৯ নম্বর রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের তালবাড়ি পূর্ব কোনাগ্রামের কিডনি জনিত রোগে আক্রান্ত মাওলানা আব্দুল ওয়াদুদ সাহেবের চিকিৎসায় সহায়তার জন্য ৮ই জুন ২০২০ সনে কানাইঘাট এসোসিয়েশন টোটাল ১হাজার ৬শ ৫০ পাউন্ড রেইজ করে হস্তান্তর করেন তার ভাতিজা আবু ছালেহ মোহাম্মদ ইয়াহিয়ার কাছে। যা বাংলাদেশী টাকায় পরিমান ছিল ১ লক্ষ ৭৬ হাজার ৫শত টাকা।
১৬ই জুন ২০২০ সনে চ্যানেল এস ফিড ৫০০০ প্রজেক্টের আওতায় কানাইঘাট এসোসিয়েশনকে ২০০০ হাজার পাউন্ড প্রদান করা হয়। চ্যানেল এস ষ্টুডিও থেকে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই টাকা গ্রহণ করি আমি (মখলিছুর রহমান), ফারুক আহমেদ চৌধুরী এবং হারুন রশিদ। ৪ই জুলাই ২০২০ তারিখে গাছবাড়ী জামিউল উলুম কামিল মাদ্রাসা মাঠে এবং কানাইঘাট উপজেলা সদরে পৃথক অনুষ্টানের মাধ্যমে টোটাল ২ লক্ষ ৪৪ হাজার টাকার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। চ্যানেল এস-এর সিলেট প্রতিনিধি জনাব মঈনুদ্দিন মঞ্জু উপস্থিত থেকে নিউজ কাভার করেন।
৫ নম্বর বড়চতুল ইউনিয়নের হারাতৈল মহিলা মাদ্রসার চালের টিন ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হলে এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ৭ই জুলাই ২০২০ সনে মাদ্রসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আবুল হুসাইন চতুলীর নিকট ৩১ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হয়।
৬ নম্বর সদর ইউনিয়নের বাটইশাইল গ্রামের এতিম হাফিজ আব্দুল মুনিম জাবেদ দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত হন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার শারীরিক অবস্থা দেখে অনেকের অনুরোধের প্রেক্ষিতে ১৩ই জুলাই ২০২০ তারিখে কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফান্ডরাইজ আরম্ব করে এবং ২৫ই সেপ্টেম্বর ২০২০ সনে টোটাল ১ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা আনুষ্টানিকভাবে হন্তান্তর করা হয়। ৭ নম্বর দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউনিয়নের সম্মানিত চেয়ারম্যান জনাব মাসুদ আহমেদ উপস্থিত থেকে এই দানের টাকা হস্তান্তর করেন।
সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হওয়া ৭ নম্বর দক্ষিন বাণীগ্রাম ইউনিয়নের ছত্রপুর গ্রামের এবাদুর রহমানের এতিম ছেলে মেয়েদের জন্য ফান্ড কালেকশন করা হয় ২০২০ সনের অক্টোবর মাসে এবং আনুষ্টানিকভাবে ২০৩০ পাউন্ড জনাব সিরাজ উদ্দিনের কাছে হস্তান্তর করা হয় ২ই নভেম্বার ২০২০ তারিখে। জনাব সিরাজ উদ্দিনের ঘরে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন চেয়ারপারসন বর্তমান এডভাইজার যথাক্রমে মাওলানা রফিক আহমেদ এবং জনাব ইজ্জত উল্লাহ, সেক্রেটারি জনাব মখলিছুর রহমন এবং অর্গানাইজিং সেক্রেটারি জনাব ফারুক আহমেদ চৌধুরী।
মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে লক ডাউনে স্থবির হয়ে যায় জনজীবন। ঘরবন্দি কানাইঘাটের মানুষের জীবনে একটু বিনোদন দিতে কানাইঘাট এসোসিয়েশন আয়োজন করে ভার্চুয়াল গেট টুগেদার মিটিং। ৩ই জানুয়ারি ২০২১ তারিখে ছোট বড় সকলেই এই আয়োজনে অংশ নিয়ে কুশল বিনিময় করেন, ভাবের আদান প্রদান করেন। পাশাপাশি তেলায়াত, বক্তৃতা, গজল গেয়ে কঠিন পরিস্তিতে একটু হলেও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন।
অতীতে কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে আমাদের কানাইঘাটের অনেক গুণীজনকে সংবর্ধনার আয়োজন করেছে। মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য ঘরবন্দি হয়ে ও ভার্চুয়ালি আমাদের এক সূর্য সন্তানকে সংবর্ধনার আয়োজন করে। গাছবাড়ী, কানাইঘাটের গর্ব জনাব এহ্সানে এলাহী সচিব পদমর্যাদায় প্রমোশন হওয়ার পর ৩১শে জানুয়ারি ২০২১ তারিখে তাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ইউরোপ, আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং বাংলাদেশ থেকে অনেকে এই ভার্চুয়াল সংবর্ধনায় অংশ গ্রহণ করেন। আবেগে আপ্লুত হয়ে সচিব এহ্সানে এলাহী এই আয়োজনকে একটি আন্তর্জাতিক সেমিনার হিসাবে আখ্যায়িত করেন। ধন্যবাদ জানান কানাইঘাট এসোসিয়েশনকে প্রবাস থেকে এই সুন্দর আয়োজন করার জন্য।
মহামারী করোনা ভাইরাসের জন্য লক ডাউনে স্কুল কলেজ বন্ধ থাকে এবং আমাদের আমাদের কোমলমতি শিশুরাও হয়ে যায় ঘরবন্দি। তাদেরকে আমাদের বড়দের সাথে কানেক্ট করতে, ইউকের কানাইঘাটি অন্যান্য শিশু কিশোরদের সাথে পরিচয় করতে আয়োজন করা হয় ভার্চুয়ালি ওপেন কালচারাল প্রোগ্রাম। ৭ই ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে কুরআনে তেলায়াত, নাশিদ, বক্তৃতা, আবৃত্তি নিয়ে মেতে উঠে আমাদের সোনামণিরা। যাদের প্রতিভা দেখে সবাই মুগ্ধ হন।
এমপিওভুক্ত না হয়েও গত ৩০ বছর থেকে ছাত্রীদের শিক্ষার আলো ছড়িয়ে আসছে তিনচটি হাজী আব্দুল খালিক মহিলা মাদ্রসা। এই মাদ্রাসার বার্ষিক জলসা উপলক্ষে ২ই মার্চ ২০২১ তারিখে দ্বিতীয় বারের মত এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ৮০ হাজার টাকা সহায়তা দেওয়া হয়।
২০২১ সনের পবিত্র রমাদান ছিল আমাদের জীবনের এক ব্যাতিক্রমের মাস। লক ডাউনের জন্য মসজিদ বন্ধ ছিল এবং ঘরে বসেই সবাই এবাদত করছিলেন। এমনই পরিস্থিতিতে কানাইঘাট এসোসিয়েশন আয়োজন করে পবিত্র রামাদানের তাৎপর্য ও গুরত্ব বিষয়ক ভার্চুয়াল নসীহামূলক অনুষ্টান। কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের এডভাইজার মাওলানা রফিক আহমেদ, ব্যারিস্টার মাওলানা কুতুবুদ্দিন আহমেদ সিকদার এমবিই এবং ইস্টলন্ডন মসজিদের খতিব মাওলানা আবুল হুসাইন খান বিষয় ভিত্তিক আলোচনার মাধ্যমে এই প্রোগ্রামকে সফল করেন।
কানাইঘাট সরকারি ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে একটি মসজিদ প্রতিষ্টার কাজে সহায়তা করার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০ এপ্রিল ২০২১ সনে কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে ফান্ড রেইজ শুরু করেন। আলহামদুলিল্লাহ, আল্লাহর এই ঘর প্রতিষ্টায় ১০ লক্ষ টাকা উত্তলোন করা হয়। ৮ই মে ২০২১ তারিখে কলেজ ক্যাম্পাসে আনুষ্টানিকভাবে কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের পক্ষে এই টাকা হস্তান্তর করেন প্রাক্তন সভাপতি ও বর্তমান এডভাইজার ব্যারিস্টার কুতুবুদ্দিন আহমেদ শিকদার এমবিই।
ঘরবন্দি মানুষের মনোরজ্ঞনের জন্য রামাদান পরবর্তী ভার্চুয়াল ঈদ গ্যাদারিং অনুষ্টানের আয়োজন করা হয়। ১৬ই মে ২০২১ তারিখে ইউকে এবং বহিবিশ্বের অনেকেই কানাইঘাটি এই প্রোগ্রামে অংশ গ্রহণ করেন। তেলায়াত, বক্তৃতা, নাশিদ, আবৃতি, অতীতের স্মৃতিচারণ করে অনুষ্টানটি হয়ে উঠে প্রাণবন্ত।
আল্লাহর রহমতে মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রকোপ উন্নতির পর কানাইঘাট এসোসিয়েশন একটি ডে ট্রিপ আয়োজন করেন। ২২শে আগস্ট ২০২১ তারিখে সাউথ ইংল্যান্ডের কাম্বারসেন্ড সমুদ্র সৈকতে দিনব্যাপী এই আয়োজনে করা হয়। লন্ডন থেকে যাওয়া, আসার পথে এবং সমুদ্র সৈকতে বিভিন্ন এক্টিভিটিজের মাধ্যমে দিনটিকে সকলেই প্রাণবন্ত করে তুলেন।
কথায় বলে, যে সমাজে গুণী জনের সম্মান করা হয় না সেই সমাজে গুণীজন জন্মায়না। প্রতিষ্টার পর থেকেই কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে আমাদের গুণীজনকে সময় সময় সংবর্ধনা দিয়ে আসছে। আগেই এমবিই খেতাব প্রাপ্তিতে সংবর্ধনা দেওয়া কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের প্রাক্তন সভাপতি, বর্তমান এডভাইসারি বোর্ডের সদস্য, ইউকের খ্যাতিমান আইনজীবী, বাংলাদেশের প্রাক্তন জজ, শ্রদ্ধেয় ব্যারিস্টার কুতুবুদ্দিন আহমেদ শিকদারের ” ফ্রিডম অব দ্যা সিটি অব লন্ডন” সম্মাননা প্রাপ্তিতে ৩ অক্টোবর ২০২১, পূর্ব লন্ডনের রিজেন্ট লেক ব্যানকুইটিং হলে জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বিপুল সংখ্যক কানাইঘাটিদের উপস্থিতি অনুষ্ঠানটিকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যায়।
২০১৮ সনে ২২ লক্ষ টাকার শিক্ষা উন্নতকরুন প্রকল্পে কানাইঘাটের প্রতিটি স্কুল ও মাদ্রাসায় কম্পিউটার এবং ছাত্রদের মধ্যে বৃত্তি প্রদান করা হয়। এবার ২০২২ সনের রামাদান মাসে কানাইঘাটের ৮৬টি হাফিজী মাদ্রাসায় ছাত্রদের মধ্যে আনুপাতিক হারে ৫ লক্ষ ২৫ হাজার টাকার পবিত্র কোরআন বিতরণ করা হয়। পবিত্র কোরআন নাজিলের মাসে হিফজে অধ্যয়নরত ছাত্রদের মধ্যে এই কোরআন বিতরণ দেশে বিদেশে প্রসংশিত হয়।
কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের এই সেশনের সর্বশেষ প্রজেক্ট হল বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কানাইঘাটের বানবাসী মানুষের জন্য ত্রান ও নগদ সহায়তা প্রদান। শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যায় আক্ৰান্ত হয় আমাদের প্রিয় জন্ম ভূমি কানাইঘাট উপজেলা। আমাদেরই এক কৃতি সন্তান ইস্ট লন্ডন মসজিদের সম্মানিত খতিব শায়েখ আবুল হুসাইন খান বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ঐক্যের ডাক দেন। কানাইঘাট এসোসিয়েশনের হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপের মাধ্যমে, বিভিন্ন মসজিদে এবং ২৫শে মে ২০২২ তারিখে চ্যানেল এস এ লাইভ আপিলের মাধ্যমে ৬০ লক্ষ টাকার ফান্ড রাইজ করা হয়। কানাইঘাটি মানুষের ঐক্যবদ্ধতা এবং লাইভ আপিলে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ দেখে চ্যানেল এস কর্তৃপক্ষ খুবই অবিভুত হন।
কানাইঘাট উপজেলার ৯ টি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভার ৯০ টি ওয়ার্ডের মানুষের মধ্যে ত্রান সামগ্রী ও নগদ টাকা হিসাবে এই টাকা বিতরণ করা হয়। প্রাথমিকভাবে ভিবিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে ত্রান সামগ্রী এবং ক্ষেত্র বিশেষে রান্না করা খাবারও পরিবেশন করা হয়।
কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের বিগত ৩ বছরের আর্থিক অনুদানের সব টাকা ইউকেতে বসবাসরত কানাইঘাটের বিত্ত চিত্তের অধিকারি মানুষেরা দান করেছেন। এই প্রজেক্টগুলো বাস্তবায়ন করতে বিভিন্ন সাব কমিটি অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। সর্বোপরি দেশে করোনাকালীন সময়ে ২৫ লক্ষ টাকা এবং বন্যায় ৬০ লক্ষ টাকা বিতরণে কানাইঘাট উপজেলার শত শত মানুষ সহায়তা করেছেন। আমরা আপনাদের সকলের কাছে কৃতজ্ঞ। আল্লাহ যেন আপনাদের সকলকেই উত্তম বিনিময় দেন।
বিলেতে অবস্থানরত কানাইঘাটবাসীদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ব বন্ধনের ঐক্য আরও দৃঢ় করার প্রত্যয়ের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকের বার্ষিক ফ্যামিলি গ্যাদারিং। ১১ই সেপ্টেম্বর (রোববার) ২০২২ ইংরেজি পূর্ব লন্ডনের এনসাইন ইয়ুথ ক্লাবে এই ফ্যামিলি গ্যাদারিংয়ে স্বতঃস্ফূর্ত ও আন্তরিক সহযোগিতায় স্বদেশীয় আবেগ, অনুভূতি, উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে বিপুল সংখ্যক কানাইঘাটবাসী সপরিবারে অংশ গ্রহণ করেন।
খ্যাতিমান এই সংগঠনের মাধ্যমে বিলেতে এবং দেশে সেবামূলক বহু কার্যক্রম অব্যাহতভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। ‘কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে’ প্রতিষ্ঠা করতে যেসকল মানবতাবাদী মানুষ ভুমিকা পালন করেছেন। যোগ্যতা অভিজ্ঞতা দিয়ে জনস্বার্থে পরিচালনা করেছেন। সেই সময়ের সন্মানিত মুরুব্বীয়ানদের মধ্যে যারা আজ দুনিয়াতে নেই। আমি তাদের সকলের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং জীবিত সকল অগ্রজদের নেক হায়াত কামনা করছি। সেই সাথে যাদের সার্বিক সাহায্য সহযোগিতা এবং সঠিক দিক নির্দেশনায় আমরা এতোটুকু মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনে সক্ষম হতে পেরেছি। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।
আশা করছি আগামী দিনে ইউকেতে বেড়ে উঠা আমাদের নতুন প্রজন্ম প্রিয় এই সংগঠনকে আরোও নতুন উদ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাবেন, ইনশা আল্লাহ। আল্লাহ আমাদের সকলের সহায় হোন। আমিন।
লেখক : মোহাম্মদ মখলিছুর রহমান, সেক্রেটারি, কানাইঘাট এসোসিয়েশন ইউকে।

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: