মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সঞ্চারী সংগীতায়ন ও সেন্ট্রো ইন্টারকালচারাল এসিনিতাস এর যৌথ উদ্যোগে ডোর প্রজেক্টের সমাপণী




মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি ইতালী থেকেঃ

প্রবাসে বেড়ে উঠা সকল শিশু কিশোরদের মাঝে নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি বিশ্বের দরবারে ছড়িয়ে দিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে রাজধানী রোমে অবস্থিত সঞ্চারী সঙ্গীতায়ন।

কোভিডের মধ্যে স্কুল বন্ধ থাকায় শিশুরা অনলাইনে সাংস্কৃতিক চর্চা করে তারা তাদের প্রতিভা বিকাশ করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় ইতালীয়ান Centro Interculturals Asinitas ও সঞ্চারী সংগীতায়নের যৌথ উদ্যোগে Door project এর সমাপনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে সঞ্চারী সংগীতায়নের কর্ণধার সুস্মিতা সুলতানার প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা গান, কবিতা আবৃত্তি ও নৃত্য পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে ইতালীয়ান সহ প্রবাসী বাংলাদেশি ও স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে দেশীয় নানা রকমারি খাবার পরিবেশন করা হয় ।

এসময় তারা বলেন, সঞ্চারী সংগীতায়ন আগামী দিনে প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজম্মের মাঝে বাংলাকে ধরে রাখতে যে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখছে তা সত্যি প্রশংসার দাবিদার। তারা সঞ্চারী সঙ্গীতায়নের এ আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের আয়োজনে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন।

সঞ্চারীর কর্ণধার সুস্মিতা সুলতানা জানানঃ কোভিডের মধ্যেও আমাদের স্কুলের কার্যক্রম অনলাইনের মাধ্যমে করানো হয়েছে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় সরাসরি ক্লাস হচ্ছে। আবার ও যদি পরিস্থিতি আগের মতো হয় তাহলেও অনলাইনেও আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত রাখবো। এবং আমরা আশা করছি সকলের সহযোগিতায় স্কুলের কার্যক্রম সবসময়ই অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, সঞ্চারীর কর্ণধার সংগীত শিল্পী সুস্মিতা সুলতানা ও চিত্র শিল্পী ইফতেখারুল আলম কনক নানা প্রতিকূলতার মধ্যে স্কুলটি চালিয়ে যাবার চেষ্টা করছেন। তাদের বিশ্বাস সব সামাজিক, রাজনৈতিক, আঞ্চলিক অঙ্গ সংগঠন ও অভিভাবকদের সহযোগিতা পেলে বাংলা সংস্কৃতিকে নতুন প্রজন্ম ও বিদেশিদের কাছে তুলে ধরতে পারবেন। এর ফলে দেশের সংস্কৃতি ভিনদেশিদের মাঝে পরিচয় লাভ করবে অন্যদিকে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে।

সম্পাদক: শাহ সুহেল আহমদ
প্যারিস ফ্রান্স থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: